এই পাতাটি প্রিন্ট করুন এই পাতাটি প্রিন্ট করুন

কৃষি সংবাদ ডট কম এর পক্ষ থেকে সবাইকে শুভ নববর্ষ ১৪২৫

Share

কৃষি সংবাদ ডেস্কঃ

প্রতি বছরের ন্যায় আবার এল বাংলা নববর্ষ ১৪২৫ সন। মোঘল শাসনামলে হিজরী পঞ্জিকা অনুসারেই সকল কাজকর্ম পরিচালিত হত। মূল হিজরী পঞ্জিকা চান্দ্র মাসের উপর নির্ভরশীল। চান্দ্র বৎসর সৌর বৎসরের চেয়ে ১১/১২ দিন কম হয়। কারণ সৌর বৎসর ৩৬৫ দিন, আর চান্দ্র বৎসর ৩৫৪ দিন। একারণে চান্দ্র বৎসরে ঋতুগুলি ঠিক থাকে না। আর বঙ্গদেশে চাষাবাদ, খাজনা আদায় ও এজাতীয় অনেক কাজ ঋতুনির্ভর। এজন্য মোগল সম্রাট আকবরের সময়ে প্রচলিত হিজরী চান্দ্র পঞ্জিকাকে সৌর পঞ্জিকায় রূপান্তরিত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সম্রাট আকবর ইরান থেকে আগত বিশিষ্ট জ্যোতির্বিজ্ঞানী আমির ফতুল্লাহ শিরাজীকে হিজরী চান্দ্র বর্ষপঞ্জীকে সৌর বর্ষপঞ্জীতে রূপান্তরিত করার দায়িত্ব প্রদান করেন। ফতুল্লাহ শিরাজীর সুপারিশে পারস্যে প্রচলিত ফার্সি বর্ষপঞ্জীর অনুকরণে ৯৯২ হিজরী মোতাবেক ১৫৮৪ খ্রিস্টাব্দে সম্রাট আকবর হিজরী সৌর বর্ষপঞ্জীর প্রচলন করেন। তবে তিনি ঊনত্রিশ বছর পূর্বে তার সিংহাসন আরোহনের বছর থেকে এ পঞ্জিকা প্রচলনের নির্দেশ দেন। এজন্য ৯৬৩ হিজরী সাল থেকে বঙ্গাব্দ গণনা শুরু হয়। ৯৬৩ হিজরী সালের মুহররম মাস ছিল বাংলা বৈশাখ মাস, এজন্য বৈশাখ মাসকেই বঙ্গাব্দ বা বাংলা বর্ষপঞ্জির প্রথম মাস এবং ১লা বৈশাখকে নববর্ষ ধরা হয়।

 

মূলতঃ সে সময় থেকেই বাংলা নববর্ষ গননা কাজ শুরু হয়। বাংলাদেশের কৃষি কাজ সাধারণত বাংলা সন কে ভিত্তি করেই আবর্তিত হয়। পহেলা বৈশাখে গ্রাম বাংলায় কৃষকরা জমিতে প্রথম চাষ দিয়ে থাকেন। বাড়িতে বাড়িতে চালের পিঠা,গোশত শিরনির আয়োজন করে থাকেন। দোকানে দোকানে হালখাতার আয়োজন করেন দোকানীরা। বকেয়া আদায় করেন আর দেনাদারদের মিষ্টি মুখ করান। এ সময় নতুন হিসেবের খাতা খুলেন। গঞ্জে বসে বৈশাখি মেলা। মেলায় বায়োস্কোপ, পুতুল খেলা আর নাগরদোলায় মেতে উঠে ছেলে বুড়োরা। কোথাও আবার ঘুড়ি উড়ানোর প্রতিযোগীতা বসে। ঘোড় দৌড়ের উৎসবও বসে কোথাও কোথাও। সব মিলিয়ে নতুন বছর সবার জীবন যেন আনন্দ আর খুশিতে ভরে ওঠে ্সে জন্য চলে নানা আয়োজন। আমরাও সবার সাথে নতুন বছরে সবার মঙ্গল কামনা করি।

নতুন বছরে প্রতিটি কৃষকের ঘরে ঘরে নিয়ে আসুক প্রাপ্তির বারতা। মুছে যাক যত সব জরা ও গ্লানি। আমাদের সকল পাঠক, লেখক, বিজ্ঞাপনদাতা ও শুভানুধ্যায়িদের প্রতি কৃষি সংবাদ পরিবারের পক্ষ থেকে রইল ‘শুভ বাংলা নববর্ষ-১৪২৫’।

আরও পড়ুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৭-২০১৮. কৃষিসংবাদ.কম
(গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য অধিদপ্তরে নিবন্ধনের জন্য আবেদিত)