এই পাতাটি প্রিন্ট করুন এই পাতাটি প্রিন্ট করুন

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ পালিত

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদকঃ

BAU Fish Rally 300x175 বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ পালিত
বর্তমানে বাংলাদেশ মাছ উৎপাদনের দিকে দিয়ে এখন চতুর্থ অবস্থানে। সম্প্রতি অর্থবছরে মাছের উৎপাদন ৩৮ লক্ষ মেট্রিক টন হবে বলে আশা করা হচ্ছে। পুকুর বা জলাশয়ে চাষের মাধ্যেমে মোট উৎপাদিত মাছের পরিমাণ প্রায় ৬০ শতাংশ। নদী বা খাল-বিলের মতো উন্মুক্ত জলাধার থেকে আসে ৩০ শতাংশ মাছ। তবে দেশের বিস্তীর্ণ সমুদ্র উপকূল থাকলেও উৎপাদন হয়েছে মাত্র ১০-১৫ ভাগ। মৎস্য সেক্টরের সাথে বর্তমানে প্রায় ২কোটি মানুষ প্রত্যক্ষ রা পরোক্ষভাবে জড়িত। সরাসরি দেশের মোট জনসংখ্যার শতকরা ১১ ভাগ। প্রতি বছর প্রায় ৬ লক্ষ লোকের নতুন কর্মসংস্থান হচ্ছে এই সেক্টরটিতে। বাংলাদেশের মানুষ প্রতিবছর গড়ে প্রায় ২০ কেজি করে মাছ খাচ্ছে। এদেশের মানুষের প্রাণীজ আমিষের চাহিদার শতকরা ৬০ ভাগ পূরণ হচ্ছে মাছে থেকেই। ১০ বছর আগেও এটি ছিল ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ।

‘মাছচাষে গড়বো দেশ, বদলে দেব বাংলাদেশ’ স্লোগানকে সামনে রেখে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) সম্প্রতি পালিত হয়েছে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০১৭। দিবসটি উপলক্ষে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি, মাছের পোনা অবমুক্তকরণ ও আলোচনা সভার আয়োজন করে মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদ। একই সাথে জাতীয় দিবসটি বর্ণাঢ্য আয়োজনে পালন করেছে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট। মৎস্য প্রযুক্তি মেলা, মাছের পোনা অবমুক্তকরণ, আলোচনা সভার ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে দিবসটি পালন করেছে ইনস্টিটিউটটি।

সম্প্রতি ১৮-২৪ জুলাই পালিত হল জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০১৭। দেশ ব্যাপী নানান আয়োজনের মধ্য দিয়ে সপ্তাহ ব্যাপী পালিত হল জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ। তারই ধারারবাহিকতায় গত ২৪ জুলাই মৎস্য র‌্যালি, মাছের পোনা অবমুক্তকরণ ও আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে দিবসটি পালন করেছে দেশে মৎস্য শিক্ষা ও গবেষণার আঁতুরঘর মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদ। দিবসটি উপলক্ষে বেলা ১১ টায় এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদ থেকে শুরু হয়ে প্রধান সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে ব্রহ্মপুত্র নদে গিয়ে শেষ হয়। র‌্যালি শেষে ব্রহ্মপুত্র নদে মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়। মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সুভাষ চন্দ্র চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আলী আকবর। বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. জসিমউদ্দিন খান, ছাত্র বিষয়ক উপদেষ্টা ড. সচ্চিদানন্দ দাস চৌধুরী, বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদ, বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টোর অধ্যাপক ড. মো. আতিকুর রহমান। ওই সময় অনুষদীয় শিক্ষক-শিক্ষার্থী, হ্যাচারী মালিক ও মৎস্য চাষীরা উপস্থিত ছিলেন। পোনা অবমুক্ত করা শেষে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। আলোচনা সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ মাহফুজুল হক। আলোচনা সভায় দেশের মৎস্যসম্পদকে সমৃদ্ধ ও দেশের প্রাণিজ আমিষের চাহিদা পূরণে দেশের মৎস্য গবেষক ও সংশ্লিষ্ট সবাইকে আরো গুরুত্ব সহকারে কাজ করার আহবান জানানো হয়।

এদিকে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ-২০১৭ উপলক্ষে জাতীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএফআরআই) ময়মনসিংহ সার্কিট হাউস প্রাঙ্গণে তিন দিনব্যাপী মৎস্য প্রযুক্তি মেলার আয়োজন করে। ময়মনসিংহে ইনস্টিটিউটের সদর দপ্তরের অডিটরিয়ামে বিকাল ৪ টায় মৎস্য প্রযুক্তি মেলার উদ্বোধন করেন বাকৃবি পরিকল্পনা ও উন্নয়ন কমিটির পরিচালক অধ্যাপক ড. মনোরঞ্জন দাস। বিএফআরআইয়ের মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ময়মনসিংহ বিভাগের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মো. মোজাম্মেল হক, মৎস্য অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. আলেকুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিএফআরআইয়ের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তারা ড. ইনামুল হক। এসময় বিএফআরআই কর্তৃক উদ্ভাবিত প্রযুক্তিসমূহের উপর উপস্থাপনা করেন ইনস্টিটিউটের পরিচালক ড. মো. খলিলুর রহমান। বৈশ্বিক, জাতীয় ও স্থানীয় পর্যায়ে মৎস্য উৎপাদনের ধারা এবং চ্যালেঞ্জসমূহের উপর উপস্থাপনা করেন বাকৃবির অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ মাহফুজুল হক।


আরও পড়ুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৬-২০১৭. কৃষিসংবাদ.কম
(গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য অধিদপ্তরে নিবন্ধনের জন্য আবেদিত)