এই পাতাটি প্রিন্ট করুন এই পাতাটি প্রিন্ট করুন

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ শুরু আজ। বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী

Fish week17. jpg 300x156 জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ শুরু আজ। বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী

কৃষিসংবাদ ডেস্কঃ

প্রতি বছরের মতো এ বছরও মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ-২০১৭ উদযাপিত হচ্ছে। ‘মাছচাষে গড়ব দেশ, বদলে দেবো বাংলাদেশ’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে আজ মঙ্গলবার থেকে শুরু হচ্ছে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ।

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের তাৎপর্য উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ তার বাণীতে বলেন, সরকার বাংলাদেশকে ২০২১ সালের মধ্যে একটি মধ্য-আয়ের দেশে উন্নীত করার লক্ষ্যে মৎস্যসম্পদ উন্নয়নসহ জনহিতকর বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। এ লক্ষ্য অর্জনে অপার সম্ভাবনাময় মৎস্য খাত গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে। জাতীয় অর্থনীতিতেও মৎস্য খাতের অবদান ও গুরুত্ব অপরিসীম। দেশের আপামর জনসাধারণের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় আমিষের চাহিদাপূরণ, কর্মসংস্থান, দারিদ্র্যবিমোচনসহ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে মৎস্যসম্পদ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।

তিনি বলেন, জনসংখ্যা বৃদ্ধির সাথে সাথে মাছের চাহিদাও বাড়ছে। মাছের আন্তর্জাতিক বাজারও সম্প্রসারিত হচ্ছে। মৎস্যসম্পদের যথাযথ সংরণ ও স্বাস্থ্যসম্মত সরবরাহ ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করতে আধুনিক ও পরিকল্পিত উপায়ে মৎস্যচাষ, আহরণ ও পরিচর্যার বিকল্প নেই। দেশীয় জাতের মাছ আজ নানা কারণে বিলুপ্ত হতে চলেছে। তাই সুস্বাদু দেশীয় জাতের মাছের সংরণও বংশবিস্তারেও গুরুত্ব দিতে হবে।

পৃথক বাণীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, খাদ্যে আমিষের চাহিদা পূরণে মৎস্যসম্পদ উন্নয়ন, মৎস্য ও মৎস্যজাত পণ্যের উৎপাদন বৃদ্ধি ও গুরুত্ব সম্পর্কে সর্বস্তরের জনগণকে সচেতন করার মাধ্যমে দেশে মাছের উৎপাদন বাড়াতে হবে। মৎস্য খাতকে সরকারের অন্যতম অগ্রাধিকারভুক্ত খাত হিসেবে অভিহিত করে তিনি বলেন, দেশের বিপুল জনগোষ্ঠীর পুষ্টি চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে বিগত সাড়ে আট বছরে সরকার এখাতে পরিকল্পিত উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করেছে। অধিকতর কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। ফলে জাতীয় অর্থনীতিতে মৎস্য খাতের ভূমিকা বৃদ্ধি পেয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা প্রাকৃতিক জলাশয়ের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা, জলজ জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ, পরিবেশবান্ধব ও উন্নত প্রযুক্তিনির্ভর মৎস্যচাষ ব্যবস্থাপনার জন্য বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করার ফলে দেশের মৎস্য উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়ে ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ৩৮ লাখ ৭৮ হাজার টনে উন্নীত হয়েছে। অভ্যন্তরীণ জলাশয়ের মৎস্য আহরণে আমাদের স্থান বিশ্বে চতুর্থ। দেশে প্রথমবারের মতো ‘জাতীয় মৎস্য নীতি প্রণয়নের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পরিবেশের ভারসাম্য রা ও জলমহালে সমাজভিত্তিক মাছচাষ ব্যবস্থাপনা, মাছের আবাসস্থল উন্নয়ন, প্লাবনভূমিতে মৎস্যচাষ ও অভয়াশ্রম স্থাপনসহ অবকাঠামো উন্নয়নে গত অর্থবছরে ৩৩২ কোটি টাকার ২২টি প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে।


আরও পড়ুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৬-২০১৭. কৃষিসংবাদ.কম
(গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য অধিদপ্তরে নিবন্ধনের জন্য আবেদিত)