এই পাতাটি প্রিন্ট করুন এই পাতাটি প্রিন্ট করুন

পুকুরে ইলিশ মাছ চাষে সফলতার দ্বার প্রান্তে বাংলাদেশী বিজ্ঞানীরা

Share

কৃষি সংবাদ ডেস্কঃ

ইলিশ মাছ খেতে পছন্দ করে না এমন লোক হয়ত খুজেঁ পাওয়া ভার। বাংলাদেশের জাতীয় মাছ ইলিশ। সাগরের ইলিশ মাছ পুকুরে চাষের জল্পনা কল্পনা অনেক দিন থেকেই।সেই কল্পনা এখন বাস্তবে রুপ দিতে যাচ্ছেন বাংলাদেশী মৎস্য বিজ্ঞানীরা। পটুয়াখালীর কলাপাড়াHilsa Ilsa এলাকার খেপুপাড়ায় নদী উপকেন্দ্রের বদ্ধ পানিতে ইলিশ চাষের উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট।বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ওয়ার্ল্ড ফিসের অর্থায়নে ইকো ফিস ও উন্নত উপকূলীয় মৎস্য প্রকল্পের আওতায় ইলিশের বংশ বাড়াতে এ কার্যক্রম শুরু হয়েছে।গবেষণার জন্য সাগরের মোহনা থেকে ৫শ’ জাটকা ইলিশ পোনা সংগ্রহ করে পুকুরে ছাড়া হয়। গবেষণায় সফলতা পাওয়া গেলে জাতীয় মাছ ইলিশ সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে আসবে। পাশাপাশি মৎস্য চাষীরা পুকুরে ইলিশ চাষ করে লাভবান হবে এমন দাবি মৎস্য গবেষকদের।

নদী উপকেন্দ্র খেপুপাড়া এলাকা সূত্রে জানা গেছে, গত ৭ থেকে ৮ হলো এ গবেষণা কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এপ্রিল ও মে মাসের দিকে পরীক্ষামূলক ওই জাটকাগুলো উপজেলার রামনাবাদ নদী ও সাগর মোহনা থেকে সংগ্রহ করে পুকুরে ছাড়া হয়েছে। পুকুরে ইলিশ চাষ প্রাথমিকভাবে সফল হয়েছে। এ বিষয়ে বৈজ্ঞানিক কর্মকতা আহম্মেদ ফজলে রাব্বি জানান, পূর্নাঙ্গ সফলতা পেতে ১০ থেকে ১৫ বছর সময় লাগতে পারে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, পুকুরে ইলিশ চাষ প্রথমে শুনে অবাক লাগলেও ভাবতে ভাল লাগল যে, নদী বা সাগর ছাড়াও আমরা পুকুর থেকে ইলিশ মাছ ধরে খেতে পারব। বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের নদী উপকেন্দ্র খেপুপাড়া’র ভারপ্রাপ্ত উর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকতা  মো. আশ্রাফুল হক জানান, ইলিশ চাষের প্রাথমিক পর্যায়ে আমরা সফলভাবে বিভিন্ন কৌশলের মাধ্যমে জীবিত জাটকা সংরক্ষণ করে পুকুরে ছাড়তে পেরেছি। এখন আমরা চাষে বিভিন্ন ধরনের রোগ বালাইয়ের সমস্যা চিহ্নিত ও তার সমাধান এবং পরিবেশের উপর খাপ খাওয়ানোর কাজ চলছে। এটা একটি দীর্ঘ মেয়াদী কার্যক্রম হলেও আমরা সফলতার দিকে এগিয়ে যাচ্ছি। সূত্রঃ মরাল নিউজ

কৃষির আরো খবর জানতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিনঃকৃষিসংবাদ.কম

আরও পড়ুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৭-২০১৮. কৃষিসংবাদ.কম
(গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য অধিদপ্তরে নিবন্ধনের জন্য আবেদিত)